ভারতে অ্যাম্বুলেন্স থেকে লাশগুলো ফেলা হয়েছিলো গঙ্গায় – জয় বাংলার জয়
  1. admin@prothomaloonlinenews.com : admin :
শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১২:৪৮ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ

শিঘ্রই ম্প্রচারে আসছে রিয়ান টেলিভিশন। ২৪ ঘণ্টার পূর্ণাঙ্গ বাংলা টেলিভিশন "রিয়ান" টেলিভিশন। ‌'দেখিয়ে দাও বাংলাদেশ' স্লোগানকে সামনে রেখে সিঙ্গাপুর, লন্ডন, নিউইয়র্ক ও ঢাকা থেকে চারটি আলাদা বেজ-স্টেশনের মাধ্যমে পরিচালিত হবে চ্যানেলটি ♦ ঈদ মানে আনন্দ, তবে আমার জন্য না! যেমন আমার ঈদের আনন্দ কেড়ে নিয়েছে সে.....

ব্রেকিং নিউজ :
সম্পাদক পদে মনোনয়ন জমা দিলেন যুবলীগ চেয়ারম্যানের স্ত্রী এড.যূথী মনোনয়নপত্র বোর্ডেই জমা হয়নি, অভিযোগ অ্যাডভোকেট যুথির ঢাকা বারের নবনির্বাচিত কমিটিকে এড. নাহিদ সুলতানা যূথীর অভিনন্দন দেবীদ্বারে তানিশা ট্রাভেল এজেন্সি উদ্বোধন দেবীদ্বারে ভোটের আগের রাতেই নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থীর মৃত্যু সাংবাদিকদের ডাটাবেজ সরকারের একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ প্রকৃত কারণ বের করা জরুরি, সাংবাদিক হাবীবের মৃত্যু দুর্ঘটনা নাকি হত্যা? : সাংবাদিক রায়হান উল্লাহ সড়ক দুর্ঘটনায় সাংবাদিকের মৃত্যু, কুমিল্লায় শোকের মাতম কর্নেল ফারুক খান এমপিকে জসীম উদ্দিন চৌধুরীর শুভেচ্ছা হুইপ স্বপনের পিতার মৃত্যুতে ফারুক খান এমপির শোক

ভারতে অ্যাম্বুলেন্স থেকে লাশগুলো ফেলা হয়েছিলো গঙ্গায়

  • প্রকাশকাল: মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১

জয় বাংলার জয় ডেস্ক : করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারতের গঙ্গায় ভেসে আসছে আরও মানুষের লাশ। গতকাল সোমবার বিহারে রাজ্যের বক্সারে গঙ্গা নদীতে ৭১টি লাশ ভেসে আসে। আজ মঙ্গলবার ওই জায়গা থেকে ৫৫ কিলোমিটার উজানে উত্তর প্রদেশ রাজ্যের গাজিপুরে ভেসে এসেছে আরও কিছু লাশ। তবে আজ কত লাশ ভেসে এসেছে, তা জানা যায়নি।

এদিকে বিহার-উত্তর প্রদেশ সীমান্তের এক সেতুর ওপর থেকে নদীতে লাশ ফেলার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। বিহারের বিজেপির সাংসদ জনার্দন সিং সিগরিওয়াল অভিযোগ করেন, উত্তর প্রদেশ রাজ্যের বালিয়া সীমান্তের কাছে বিহারের শরন এলাকায় জয়প্রভা সেতুতে অ্যাম্বুলেন্স করে করোনায় মারা যাওয়া রোগীদের নিয়ে এসে নদীতে ফেলছেন চালকেরা। অ্যাম্বুলেন্সের চালকেরা যাতে নদীতে মরদেহ ফেলতে না পারেন, সে ব্যাপারে তিনি শরনের জেলা প্রশাসনকে ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানান।



ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, গঙ্গায় লাশ ভেসে আসার ঘটনায় জনমনে আতঙ্ক ও ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিহারের রাজ্য প্রশাসনের দাবি, উত্তর প্রদেশ থেকে এসব লাশ ভেসে আসছে। কারণ, বিহারে নদীতে লাশ ভাসিয়ে দেওয়ার কোনো রীতি নেই।

বক্সার প্রশাসন এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, গতকাল বক্সারে গঙ্গা থেকে রাতভর লাশগুলো উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়ে ময়নাতদন্ত করা হয়। লাশগুলো পচে গিয়েছিল। লাশগুলো থেকে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

তবে নদীতে লাশ ফেলার জন্য দুই রাজ্যকেই দুষছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অরবিন্দ সিং নামের এক ব্যক্তি বলেন, বিহার ও উত্তর প্রদেশ দুই জায়গা থেকেই অ্যাম্বুলেন্সের চালকেরা নদীতে লাশ ফেলছেন।

এনডিটিভি জানায়, প্রত্যন্ত এলাকায় করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের কীভাবে সৎকার করতে হয়, তা তাদের জানা নেই। তাই মরদেহ থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে, এমন আশঙ্কায় তারা মরদেহগুলো নদীতে ভাসিয়ে দিচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
এভাবে নদীতে লাশ ভেসে আসায় আতঙ্কিত মানুষ। তাঁরা মনে করছেন, এতে নদীর পানি থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, তারা এ ঘটনা তদন্ত করে দেখছে।

আরও পড়ুন :  প্রার্থী বাছাইয়ের ভুলেই আওয়ামী লীগের ভরাডুবি, চান্দিনায় ৩টিতে নৌকা, ৯টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এএনআইকে গাজিপুরের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এমপি সিং বলেন, ‘আমরা বিষয়টি জানতে পেরেছি। আমাদের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আছেন। এ নিয়ে একটি তদন্ত চলছে।’
এদিকে প্রশাসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে আখন্দ নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, ‘প্রশাসনকে আমরাই বিষয়টি জানিয়েছি। কিন্তু তাদের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ দেখতে পাচ্ছি না। এভাবে নদীতে লাশ ভেসে আসতে থাকায় আমরা করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে ভীত।’

বিহারের ঘটনা নিয়ে টুইট করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের নদী উন্নয়ন, গঙ্গা পুনর্জীবন, পানিসম্পদ ও স্যানিটেশনবিষয়ক মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত। সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলোকে বিষয়টি আমলে নিতে বলেছেন তিনি।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, ‘বক্সারে গঙ্গা নদীতে লাশ ভেসে আসার ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক। এটির অবশ্যই তদন্ত হওয়া উচিত। মা গঙ্গা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা মোদি সরকারের অঙ্গীকার। লাশ ভেসে আসার ঘটনা অপ্রত্যাশিত। সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলোর উচিত অতিদ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা।’



গতকাল বক্সারে গঙ্গা নদীতে ৭১টি পচাগলা লাশ ভেসে আসে। এতে করোনা সংক্রমিত হয়ে যাওয়ার আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বিহারের উত্তর প্রদেশ সীমান্তে চৌসা শহরের নদীর তীরে এসব লাশ ভেসে আসে।

এর আগে গত শনিবার হিমাচল প্রদেশের হামিরপুর শহরে যমুনা নদীতে কিছু লাশ ভেসে এসেছিল। লাশগুলো আংশিক পুড়ে যাওয়া ছিল।
ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেস বলছে, করোনায় মৃতের সংখ্যা গোপন করা হচ্ছে। এসব লাশ সেটিই প্রমাণ করছে।

এদিকে ভারতে গতকাল সোমবার ৩ লাখ ২৯ হাজার ৯৪২ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এদিন দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত হয়ে মারা যান ৩ হাজার ৮৭৬ জন।
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ভারতে করোনায় সংক্রমিত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ২৯ লাখ ৯২ হাজার ৫১৭। মোট প্রাণহানি ২ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯২ জনের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ ক্যাটাগরীর আরও খবর




twitt feed

Linkedin profile



Copyright ©2021,joybanglarjoy.com, All Rights Reserved.

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি